শিরোনাম
গ্রেফতার বন্ধ না করলে পরিস্থিতি ভয়াবহ হবে: ঐক্যফ্রন্টপর্ব-২ ছদ্মবেশী অনুসন্ধান।। মহাসড়কে টাকার ছড়াছড়ি! (ভিডিও)চকরিয়ায় বিএনপির প্রার্থীর গাড়ি বহরে হামলা সাংবাদিকসহ আহত ২০রাজনীতিতেও দেশপ্রেমের নজির স্থাপন করতে চান মাশরাফি‘গৌরবময় স্বাধীনতা’ ব্যতিক্রমী কাজের মাধ্যমে প্রশংসায় ভাসছেন এসপি শাহ মিজানব্যারিস্টার মাহাবুব উদ্দিন খোকন গুলিবিদ্ধ, থমথমে নোয়াখালীআওয়ামী লীগের ইশতেহার ঘোষণা ১৮ ডিসেম্বরআমজাদ হোসেনের সম্মানে তিন দিন শুটিং বন্ধকুয়েতে আকামা বদলের নতুন নিয়ম চালু হচ্ছেউলিপুর আ.লীগ সভাপতি শিউলি বহিষ্কারবিজয়ের সাজে সজ্জিত ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়মেঘালয়ে ‘ইঁদুরের গর্তে’ নিখোঁজ ১৩ গ্রামবাসীকাশ্মিরে সংঘর্ষ গুলি, নিহত ১১দিনাজপুরে পানিতে ডুবে দুই শিশুর মৃত্যুনারীদের অবদানে রাজশাহী আরও এগিয়ে যাবে : মেয়র লিটনরাজধানীর পুরান ঢাকায় বাসা থেকে গ্রেনেড উদ্ধারভোটকক্ষ থেকে সরাসরি সম্প্রচার করা যাবে না: সিইসিশিবগঞ্জে সাবেক পৌর কাউন্সিলরসহ গ্রেফতার ৩ইবিতে শীতকালীন ছুটি ২৯ ডিসেম্বর হতে ৯ জানুয়ারিঝালকাঠিতে জাপার প্রচার আছে মাঠে নেই প্রার্থী ও কর্মী

ইমার্জিং কাপে শুরুর ম্যাচেই ভরাডুবি বাংলাদেশের

খেলা: ইমার্জিং এশিয়া কাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে আরব আমিরাতের বিপক্ষে ৯৭ রানের বড় ব্যবধানে হেরে গিয়েছে বাংলাদেশ অনুর্ধ্ব-২৩ দল। ২৬৮ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে নুরুল হাসান সোহানের দল অলআউট হয়েছে মাত্র ১৭০ রানে।

রান তাড়া করতে নেমে শুরু থেকেই আমিরাতের বোলারদের তোপে পড়ে বাংলাদেশ। ওপেনার মিজানুর রহমান ৪৩ ও চারে নামা ইয়াসির আলির ২০ রান ব্যতীত স্বীকৃত ব্যাটসম্যানদের কেউই দুই অঙ্কে যেতে পারেননি।

রানের খাতাই খুলতে পারেননি দলের দুই সেরা তারকা মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত ও অধিনায়ক নুরুল হাসান সোহান। এছাড়া জাকির হাসান ৩, নাজমুল হোসেন শান্ত ৮ ও আফিফ হোসেন করেন ১৮ রান। একপর্যায়ে ৯৯ রানেই ৭ উইকেট হারিয়ে বসে তারা।

শেষ দিকে দুই পেসার শরীফুল ইসলাম ও শফিউল ইসলাম মিলে ৫৪ রানের জুটি গড়ে বলার মতো সংগ্রহে নিয়ে যান দলকে। শরীফুল ৩১ ও শফিউল করেন ৩২ রান। আমিরাতের পক্ষে আহমেদ রাজা ও ইমরান হায়দার ৪টি করে উইকেট নেন।

এর আগে টসে জিতে ব্যাট করতে নেমে উদ্বোধনী জুটিতেই ১০২ রান করে ফেলে আরব আমিরাত। তাদের অধিনায়ক রোহান মোস্তফাকে সাজঘরে ফিরিয়ে স্বস্তি আনেন বাংলাদেশের অধিনায়ক মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। মোস্তফা করেন ৪০ রান।

শতরানের উদ্বোধনী জুটির পরে দ্বিতীয় উইকেটেও আসে ৫৮ রান। ওপেনার আশফাক আহমেদ ফেরেন সেঞ্চুরি থেকে দুই রান দূরে থাকতে। ১৬ চার ও ১ ছক্কার মারে ৯৩ বলে ৯৮ রান করেন আশফাক। তিনে নামা উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান গোলাম সাব্বির খেলেন ৫২ রানের ইনিংস।

এরপর আর কেউই তেমনভাবে প্রতিরোধ গড়তে পারেনি। শাইমান আনোয়ার ৩৪, মোহাম্মদ বুটা ১২ ও মোহাম্মদ নাভিদ করেন ১২ রান। শেষের তিন ওভারে ৪ উইকেট তুলে নিয়ে আমিরাতের রানের চাকা বেশি ঘুরতে দেননি বাংলাদেশের বোলাররা।

বল হাতে বাংলাদেশের পক্ষে শরীফুল ইসলাম ৪টি ও খালেদ আহমেদ নিয়েছেন ৩টি উইকেট। তানভীর ইসলাম ও আফিফ হোসেন ধ্রুব ব্যতীত সবাই রান বিলিয়েছেন দেদারসে।

সংবাদটি শেয়ার করুন..