আজ: ১৬ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ইংরেজি
শিরোনাম

এক স্থানে বসে থাকলে বাড়ে সায়াটিকা?

স্বাস্থ্য: শীত এলেই সায়াটিকা বাড়ে। যাদের ব্যথা আছে, তাদের জীবনযাপনে খুব কষ্ট হয়। শীতে কোমরসহ অন্য জয়েন্টের মাংসপেশিতে টান বেশি লাগে। আবার দীর্ঘ ক্ষণ এক জায়গায় বসে কাজ, মাঝে হাঁটাচলার সময় না পাওয়া ইত্যাদির কারণে এমন ব্যথা হতে পারে।এক জায়গায় বসা ছাড়াও চাকা দেয়া চেয়ারে বসে থাকা, শরীরের প্রয়োজনীয় শ্রমে ঘাটতি ইত্যাদি কারণেও এমন ব্যথার শিকার হতে পারেন। সায়াটিক স্নায়ুর উপর চাপ পড়ে উরুর পিছনের দিক থেকে শুরু করে পায়ের পিছনের দিকে এই ব্যথা ছাড়িয়ে যায়। অনেক সময় অবশও হয়ে আসে পায়ের একাংশ।

এক জায়গায় বসে কাজ করলে বা হাঁটাচলা জাতীয় শারীরিক শ্রম কম করলে বেশ কিছু সাবধানতা অবলম্বনের পরামর্শ দেন চিকিৎসকরা। যার মধ্যে রয়েছে প্রতিদিন নির্দিষ্ট সময় ধরে হাঁটা, শারীরিক পরিশ্রম করা। এছাড়াও রয়েছে আরো কিছু ঘরোয়া উপায়।

গরম পানিতে গোসল

এই ধরনের স্নায়বিক বেদনা কমাতে গরম পানিতে গোসলই খুবই কার্যকর। গরম পানি স্নায়ুর ক্লান্তি কমাতে ও শরীরকে সতেজ করতে বিশেষ উপকারি।

বরফ সেঁক

গরম পানিতে গোসলের পর সায়াটিকার ব্যথা যে অংশে হচ্ছে সেখানে বরফ সেঁক দিন। এতে যেমন মানসিক চাপ কমে, সেই সঙ্গে সায়াটিকার ব্যথাতেও আরাম হয়।

যোগাসন

শরীরের বিভিন্ন জায়গায় ব্যথা ও দীর্ঘমেয়াদী কোনো অসুখ কমাতে যোগাসনের বিকল্প নেই। সায়াটিকার ব্যথা কমাতেও নির্দিষ্ট কিছু যোগাসন আছে। ভূজঙ্গাসন, বৃক্ষাসন প্রভৃতি সায়াটিকার ব্যথা কমাতে বিশেষ কার্যকর। কোনো বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিয়ে এই ধরনের আসন করার অভ্যাস করুন প্রতিদিন।

ম্যাসাজ

কোমর ও উরুর পেশিতে ব্যথা কমাতে চাইলে ফিজিওথেরাপিও করাতে পারেন। অ্যারোমাথেরাপিতেও স্নায়ুর নানা ম্যাসাজ হয়। সায়াটিকার ব্যথা কমাতে এগুলোও খুবই কার্যকর। তবে সায়াটিকার ব্যথা কমাতে বিভিন্ন তেল ব্যবহার না করে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। ব্যথার ধরন বুঝে নিয়ম মেনে চলুন।

সংবাদটি শেয়ার করুন