আজ: ১৮ই আগস্ট, ২০১৯ ইংরেজি
শিরোনাম

জাবিতে গাছ কেটে ‘অপরিকল্পিত’ হল নির্মাণের প্রতিবাদে বিক্ষোভ

আরিফুজ্জামান উজ্জল, জাবি ।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) অধিকতর উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় সহস্রাধিক গাছ কেটে অপরিকল্পিত ভাবে প্রাকৃতিক পরিবেশ ধংস করে হল নির্মাণের প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল করেছে শিক্ষক-শিক্ষার্থী ঐক্যমঞ্চ।

বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) বেলা ১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের টারজান পয়েন্ট এলাকা থেকে মিছিলটি শুরু হয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন সড়ক ও অনুষদ ভবন প্রদক্ষিণ করে পুরাতন প্রশাসনিক ভবনে গিয়ে সংক্ষিপ্ত সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়।

সমাবেশে দশর্ন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক রায়হান রাইন বলেন, ‘আমরা দীর্ঘদিন ধরে বলে আসছি কোন ভবন নির্মাণের পূর্বে সেই স্থানের জীব বৈচিত্র রক্ষা ও সেখানকার বসবাসকারীদের রুচি ও পছন্দের সাথে মিল রেখে ভবন নির্মান করা হয়। কিন্তু বর্তমান প্রশাসন প্রকৌশলীদের বলে দিয়েছে কোথায় ভবন নির্মাণ করা হবে। যেখানে জীব বৈচিত্রর কোন তোয়াক্কা করা হয়নি। আমরা এই অপরিকল্পিত ভবন নির্মাণের বিরোধিতা করছি।’

বাংলা বিভাগের অধ্যাপক শামীমা সুলতানা বলেন, ‘আমরা শিক্ষার্থী বান্ধব, পরিবেশ বান্ধব ও জীববৈচিত্র বান্ধব উন্নয়ন চাই। আমরা উন্নয়নের অন্তরায় নই কিন্তু উন্নয়নের নামে যে অপরিকল্পিত ভবন নির্মাণের পরিকল্পনা তার বিরোধিতা করছি।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি আশিকুর রহমান বলেন, ‘নিম গাছ থেকে যেমন মিষ্টি আম পাওয়ার আশা করা যায় না তেমনি অপরিকল্পিত ভবন নির্মানের ফলে ভাল কিছু আশা করা যায় না। অবৈধ ছাত্রদের হল থেকে বের না করে যতই হল নির্মাণ করা হোক সিট সংকট নিরসন হবে না।

এছাড়া তিনি প্রশাসনকে হুশিয়ারি করে বলেন এই অপরিকল্পনা বাস্তবায়ন হলে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তোলা হবে।’

এসময় অন্যান্যর মধ্যে আরো বক্তব্য রাখেন সাধারন ছাত্র অধিকার ও সংরক্ষন পরিষদ জাবি শাখার সমন্বয়ক আবু সাঈদ, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের (মার্ক্সবাদী) সাধারন সম্পাদক সুদীপ্ত দে ও বিভিন্ন ছাত্র সংগঠনের প্রতিনিধিরা।

উল্লেখ্য, বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘অধিকতর উন্নয়ন প্রকল্প’র অধীন ছয়টি হল নির্মাণের পরিকল্পনা রয়েছে।

গত ৩০ জুন উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলাম, ১০তলা বিশিষ্ট পাঁচটি হল নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন। ছাত্রদের তিনটি হল বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর হলের উত্তর, দক্ষিণ ও পূর্ব পার্শ্বে নির্মাণের জন্য ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়েছে।

এছাড়া বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হলের দক্ষিণ পাশে টারজান পয়েন্ট সংলগ্ন স্থানে ছাত্রীদের দুটি হল নির্মাণের লক্ষ্যে ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়েছে। যেখানে হলগুলো নির্মাণ করতে ১১৩২ টি গাছ কাটা পড়বে।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  • 2
  •  
  •  
  •  

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার মতামত জানান

আপনার ই-মেইল আইডি গোপন রাখা হবে।