আজ: ২৫শে আগস্ট, ২০১৯ ইংরেজি
শিরোনাম

শাহজাদপুর পৌর শহরের প্রধান সড়কের বেহাল অবস্তা

এম.এ. জাফর লিটন, সিরাজগঞ্জ ।

সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর পৌর শহরের ১ কিলোমিটার প্রধান সড়কের বেহাল অবস্থা হওয়ায় জনগণের দুর্ভোগ চরমে পৌছেছে।

অসংখ্য খানা খন্দকে ভরা সড়কটিতে একটু বৃষ্টি হলেই যানবাহন চলাচল, যাতায়াত ও পায়ে হেঁটে চলাচল করাও কঠিন হয়ে পড়ে। শাহজাদপুরের প্রধান বিসিক বাসষ্ট্যান্ডগামী সড়কটি পৌর শহরের দ্বারিয়াপুর হয়ে ঢাকা বগুড়া মহাসড়কে মিলিত হয়েছে।

বিসিক বাসষ্ট্যান্ড থেকে বাজার হয়ে এ সড়কটি থানাঘাট করতোয়া ব্রীজে মিলিত হলেও সংস্কারের অভাবে দীর্ঘদিন হল অবহেলিত অবস্থায় পরে আছে।

প্রতিদিন উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের ও পৌর এলাকার লক্ষ লক্ষ মানুষের চলাচল ও নিত্যপ্রয়োজনীয় কাজে এই সড়কটি ব্যবহৃত হয়। কিন্তু অজ্ঞাত কারণে বিগত ৪ বছর যাবৎ রাস্তাটির উল্লেখযোগ্য কোন সংস্কার কাজ হয় নাই।

যার কারণে বিভিন্ন স্থানে বড় বড় গর্ত খানা খন্দক হওয়ায় যানবাহন চলাচল দূরে থাক পায়ে হেঁটে চলাচল করাও দুষ্কর।

পৌর শহরের দ্বারিয়াপুর বাজারের ফলপট্টি থেকে মনিহার সিনেমা হল পর্যন্ত একবারেই বেহাল অবস্থা।

ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকায় যত্রতত্র ফুটপাত ব্যবসায়ীরা এবং অন্যান্য ব্যবসায়ীরা অবাদে আবর্জনা রাস্তার উপরেই ফেলে। যার কারণে অসহনীয় দুর্গন্ধ ময়লা আবর্জনায় সড়কটির বেহাল অবস্থা।

এ রাস্তাটি সড়ক ও জনপদ বিভাগের হওয়ায় উপজেলা প্রশাসন ও পৌর কর্তৃপক্ষ সংস্কারের কাজ করতে পারছে না। প্রতিদিন গর্তে গাড়ি পড়ে দুর্ঘটনা ঘটছে।

বাসষ্ট্যান্ড থেকে শহরেও প্রবেশগামী রাস্তাটি দ্বারিয়াপুর বাজারের প্রধান সড়ক হওয়ায় এ রাস্তাটি দিয়ে প্রতিদিন লাখ লাখ মানুষ যাতায়াত করছে। বৃৃষ্টি হলেই ব্যবসায়ীরা বড় বড় গর্তে কলার খোসা ও আবর্জনা দিয়ে গর্ত ভরাট করে রাখে।

এতে বিভিন্ন যান চলাচল করলে দুর্ঘটনা ঘটে। এ বিষয়ে শাহজাদপুর পৌরসভার প্রধান প্রকৌশলীকে এ বিষয়ে জিজ্ঞাসা করলে তিনি জানান, উক্ত রাস্তাটি পৌরসভার নয়, এটি সড়ক ও জনপদের রাস্তা।

পৌরসভার অর্থায়নে রাস্তার পার্শ্বে ড্রেন করায় একটু পানি নিষ্কাশন হলেও গর্তে পানি জমে থাকে।

দ্বারিয়াপুর বাজারের ব্যবসায়ী মোশাররফ হোসেন জানান, রাস্তাটি শাহজাদপুর পৌর শহরের প্রধান সড়ক হওয়া সত্ত্বেও এটি সংস্কার না হওয়ায় পৌর এলাকার জন্য দুর্ভাগ্য ছাড়া আর কিছুই নয়।

শহরের ব্যবসায়ী ও জন সাধারণ উক্ত রাস্তাটি দ্রুততার সহিত মেরামত করার জন্য কর্তৃপক্ষের প্রতি জোর দাবি জানান।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  • 47
  •  
  •  
  •  

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার মতামত জানান